221

ত্বকীর স্বপ্ন আমাদরে লড়াই

আনু মুহাম্মদ

তানভীর মুহাম্মদ ত্বকীর হত্যাকাণ্ড আমাদরে সবাইকে কঠনি ধাক্কা দয়িছেলি। আমরা এখনও ত্বকীর দৃষ্ট,ি ওর র্কম, ওর নষ্পিাপ মুখচ্ছবি থকেে মনোযোগ সরাতে পারি না। আমরা চাপা কষ্টরে মধ্যে সময় পার কর।ি যন্ত্রণা ও ক্রোধে তাড়তি হই যখন দখেি খুনি র্দুবৃত্তদরে উল্লাস। দশেে আইন আদালত বচিার আছে বলে জান।ি সগেুলো সবই অচল, খুনরিা এখন আরও ক্ষমতাধর। সরকার যনে এই ধরনরে হত্যাকাণ্ডে খুশি হয়ে একরে পর এক পুরস্কার দয়িে যাচ্ছে খুনদিরে!
যে সমাজে আমরা বাস কর,ি এই নৃশংস ঘটনা আবারো এই সমাজরে রূপ আমাদরে সামনে হাজরি কর,ে সারি সারি অনকে তক্তি সত্য আমাদরে সামনে উপস্থতি হয়। দখোয় এগুলো শুধু এক-দুই ব্যক্তরি বষিয় নয়, এদরে ক্ষমতার জাল বহুদূর বস্তিৃত, বহুবধি অপরাধে তারা লপ্তি। যারা হত্যা করছেে তারা কারা? তারা ভ‚মদিস্যু, একরে পর এক জলাভ‚ম,ি সাধারণ মালকিানাধীন জমি তাদরে দখল।ে তারা চাঁদাবাজ, পরবিহন থকেে শুরু করে সকল ব্যবসা-বাণজ্যি তাদরে শকিার। দনিে দনিে তাদরে ক্ষুধা বাড়।ে বাসভাড়া থকেে শুরু করে প্রতটিি ক্ষত্রেে নাগরকিদরে বাড়তি র্অথ খরচ করতে হয়, যা এই চাঁদাবাজদরে কোটি কোটি টাকার সম্পদ তরৈি কর।ে তারা সন্ত্রাসী, কারণ দখল-লুণ্ঠন ও চাঁদাবাজি র্কাযকর করতে তাদরে সন্ত্রাসীবাহনিী পুষতে হয়। এই ভাড়াটে বাহনিী শুধু ভাড়া খাটে না, নজিদেরে ক্ষুধা মটোতে নজিরোও নতুন নতুন পথ সন্ধান কর।ে এদরে হাতে নর্যিাতন, র্ধষণ, হয়রানি এগুলো তাই নয়িমতি ঘটনা। এই মাফয়িা গোষ্ঠীর হাতে বাঁধা থাকে প্রশাসন, পুলশি আইন আদালত। কাজইে তারা যথচ্ছোচার করতে পার।ে তারা সরকারি র্শীষ ক্ষমতার প্রয়িপাত্র, কারণ তারা আবার জনগণরে কাছ থকেে লুণ্ঠতি র্অথরে একাংশ উপরে পৌঁছে দয়ে। পাশাপাশি তাদরে সন্ত্রাসীবাহনিীর ওপর ভর করে সরকার তার ক্ষমতার ভত্তিি টকিয়িে রাখবার আশা কর।ে জনগণরে ওপর ভরসা করবার মতো কাজ তারা করে না।
সজেন্য ত্বকী হত্যার পর আমরা যে আশংকা করছেলিাম সটোই সত্য প্রমাণতি হলো। সুনর্দিষ্টি অভযিোগ, গোয়ন্দো সংস্থার রপর্িোট এবং প্রমাণাদি থাকার পরও অপরাধীদরে বরিুদ্ধে কোনো আইনগত ব্যবস্থা তো নয়ো হয়ইনি বরং সরকাররে প্রত্যক্ষ মদদে তাদরে ঔদ্ধত্য আরও বড়েছে।ে অভযিুক্ত আসামদিরে বরিুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণরে পরর্বিত,ে এই হত্যাকাÐরে একজন অন্যতম অভযিুক্ত আসামকিে নর্বিাচনে সরকারি দল থকেে সংসদ সদস্যপদে মনোনয়ন দয়ো হয়ছে।ে সইে মনোনীত ব্যক্তি র্অথাৎ আসামি শামীম ওসমান এখন বনিা প্রতদ্বি›দ্বিতায় জাতীয় সংসদরে নর্বিাচতি সদস্য! শুধু নর্বিাচতি নয়, ত্বকী হত্যার প্রতবিাদে যারা সক্রয়ি ছলিনে, জনগণরে ভোটে নর্বিাচতি আওয়ামী লীগ নতো ময়ের আইভীসহ বভিন্নি দলরে ও সমাজরে বভিন্নি র্পযায়রে সইে নতো র্কমীদরে বরিুদ্ধে ওসমান বাহনিী সন্ত্রাসী তৎপরতায় আবারো সক্রয়ি হয়ে ওঠছে।ে প্রশাসন তাদরেই সহযোগী। অবস্থাদৃষ্টে আবারো স্পষ্ট য,ে সরকাররে কাছে সন্ত্রাসী মাফয়িা অপশক্তইি গুরুত্বর্পূণ। তাতে সরকারী দলরে জনপ্রয়ি ব্যক্তদিরে অস্বীকার করতওে র্কতা ব্যক্তদিরে কোনো দ্বধিা নইে।
যে সরকারে ত্বকীর হত্যাকারীসহ সন্ত্রাসী মাফয়িাদরে দাপট, সইে সরকার সন্ত্রাস দমন করব,ে র্দুনীতি দূর করব,ে জনগণরে র্স্বাথ রক্ষা করব,ে তারা মুক্তযিুদ্ধরে চতেনার ধারক-বাহক এসব কথাও আমাদরে শুনতে হয়। ত্বকীর মতো নরিাপরাধ নরিস্ত্র শল্পিী-কব-িকশিোরকে হত্যা যুদ্ধাপরাধরে সমতুল্য। এদরে যারা রক্ষা করে তারা অবশ্যই মুক্তযিুদ্ধরে চতেনার প্রতপিক্ষ।
কনে তারা হত্যা করলো ত্বকীক?ে ত্বকী স্কুলরে মধোবী ছাত্র, সৃজনশীল কশিোর। লখোপড়া, কবতিা লখোসহ সৃজনশীল কাজ নয়িইে ব্যস্ত থাকতো ও। লাইব্ররেি ছলিো তার প্রয়ি গন্তব্য, বই ছলিো প্রয়ি সঙ্গী, মানুষরে সৃজনশীল মুক্ত ভবষ্যিৎ ছলিো তার স্বপ্ন। আমরা জান,ি মাফয়িা সন্ত্রাসীরা এরকম মুক্তচন্তিার কশিোর তরুণদরে পছন্দ করে না। কন্তিু নর্দিষ্টিভাবে ত্বকীকে খুন করলো কনে তারা? কারণ এরকম ত্বকী ছলিো তাদরে জন্য অস্বস্তকির, ভীতরি কারণ। দ্বতিীয়ত, ওসমান পরবিার ক্ষমতার মদমত্তে গড়ে তুলছেলিো খুনি উৎপীড়কদরে একটি অন্ধকার জগৎ। তারা জানতো, তারা যে কোনো অপরাধ করতে পার,ে কোনো অপরাধইে তাদরে কোনো বচিার হবে না। খলোর ছলে মানুষকে খুঁচয়িে খুঁচয়িে মরেে ফলেলওে না। সজেন্য মানুষকে অত্যাচার করা হয়ে দাঁড়য়িছেলিো, এখনও তাই আছ,ে তাদরে বনিোদনরে বষিয়। তৃতীয়ত, ত্বকীর বাবা ও তার পরবিার জনগণকে সাথে নয়িে এই মাফয়িাদরে সকল দখল লুণ্ঠন অত্যাচাররে বরিুদ্ধে একটি শক্ত প্রতরিোধ গড়ে তুলছেলিনে। এই পরবিারকে চুরমার করতইে তারা বছেে নয়িছেলিো নষ্ঠিুরতম পথ।
যভোবে ত্বকীকে হত্যা করা হয়ছেলিো তা যনে ত্বকী আগে থকেইে জানতো, জানতো অসংখ্য ঘটনা উপলব্ধি করবার অসাধারণ সংবদেনশীলতা থকে।ে ওর লখো নচিরে ‘কারা সইে রাজহাঁস’ কবতিাটি পড়লে তাই যে কারও মনে হতে পারে এটি ওর নজিরে হত্যাকাÐ নয়িে লখো। এখানে ত্বকীর মতো খুন হয়ে যাওয়া মানুষ আর সমাজ একাকার। ত্বকী লখিছেলিো-
ওরা সমাজকে হত্যা করে
পশেী শক্তি দয়ি,ে
টুকরো-টুকরো করে
ধারালো অস্ত্র ও ছুরি দয়ি-ে
ওরা চায় রক্ত
ওদরে র্শাটে কাপড়ে মখেে
মানুষকে দখোবে বল-ে
ওরা রক্ত দয়িে রাঙয়িে নয়ে জামা,
রক্তাক্ত, কলঙ্কতি, কাদামাখা;
অথচ কাদা নয়
এ এক মসৃণ যন্ত্রণা-
কণ্ঠনালী থকেে
এ যন্ত্রণা গড়য়িে পরে রক্তরে মতো;
বীভৎসতার শুরু এখান থকে-ে
একটি মসৃণ-চাপাতি
হত্যার জন্য
একটি দা-রামদা
ধারালো, চকচকে
এবং
ক্যামরোয় ছবি উঠতে থাকে
রক্ত ঝরার দৃশ্যরে-
ওরা চর্তুদকিে
একজন নচিে
অন্যরা তাকে ঘরিে
ঘুরতে থাকে চক্রাকারে
যন্ত্রণার রক্ত ঝরে ঝরে পড়ে
ওদরে উপর-ে
কারা সইে রাজহাঁস?
ওরা কারা?
(মাকসুদুল আরফেনি অনূদতি ত্বকীর এই ডযড় ধৎব ঝধহিং কবতিাটি মৃত্যুর কছিুদনি আগে লখো)
যারা তাকে হত্যা করে তাদরে অনকে আগইে তাই ত্বকী সনাক্ত করে নজিরে কয়কেটি কবতিায়। স্বপ্নরে মানুষ এবং শত্রæরা দুটোই ত্বকীর লখোয় বারবার ঘুরে ঘুরে আস।ে
ওরা স্তব্ধ করে দতিে চায় জীবনরে স্পন্দন,
পরধিানে দহেরে অস্থি ব্যবহার কর,ে
ধারালো অস্ত্র দয়িে
হত্যা করে জাতরি শ্রষ্ঠে সন্তান,
ওরা মানুষরে রক্ত ভালোবাসে
এবং মানুষরে হৃদয়কে বষিয়িে তোলে
বকিৃত করে
সমাজ আর নষ্কিলুষ মানুষরে;ে
ওরা ভয় দখোতে চায় আদমি হংিস্রতায়!”
হ্যাঁ, প্রতরিোধরে শক্তকিে ভয় দখোনোর জন্যই ওরা কোমলপ্রাণ ত্বকীকে হত্যা করছেলিো। কন্তিু ত্বকীর এইটুকু বয়সরে উচ্চারণ তার বরিুদ্ধে প্রবল সাহস হয়ে আমাদরে মধ্যে নতুন প্রাণরে সঞ্চার কর।ে এতো কম বয়সওে নতুন একটি মুক্ত সমাজরে স্বপ্ন দখোর বশিালতা র্অজন করে ত্বকী।
‘স্বপ্ন’ কবতিায় ত্বকী বল,ে
আমাদরে স্বপ্ন
মানুষ হওয়া-
দু’বলো খাওয়াইতো
নয় সব।
আছে মানুষ হয়ে
চলার স্বাদ,
সমান অধকিার
জ্ঞানে পথ চলার।
সকল মানুষরে জন্য ত্বকী স্বপ্ন দখেে আত্মবশ্বিাসী উচ্চারণ,ে
সমগ্র মানবজাতি আজ এক কাতারে দাঁড়াব-ে
হংিসা বদ্বিষেরে র্ঊধ্বে উঠ,ে
জলাঞ্জলি দয়িে হসিবে কষা,
ছড়য়িে দবেে ভালোবাসার গান-
বলবে মানুষ চাই সমানে সমান।
নজিরে সঙ্গে সমগ্র মানুষরে ভবষ্যিতকে এক করে দখেতে সর্মথ হয় কশিোর প্রাণ,
“আরও একবার আমি মানুষ হয়ে মরব,
উত্থতি হতে নষ্কিলঙ্ক ফরেশেতাদরে পাশ-ে
তবে তা থকেওে উন্নীত হতে হবে আমাক,ে..”
মানুষ যদি মানুষ হয়ে মৃত্যুর সংকল্প করে তাকে পরাজতি করে সাধ্য কার?
১৬ কোটি মানুষরে একটি বশিাল সম্পদশালী দশে আমাদরে বাংলাদশে। অথচ কতপিয়রে হংি¯্র আধপিত্য, লুণ্ঠন ও শোষণে এই দশেরে অধকিাংশ মানুষ এখনও মানবতের জীবন যাপন করছ।ে পুরো দশে পরণিত হয়ছেে দশে-িবদিশেি হংি¯্র দানবদরে অভয়ারণ্য।ে নারী শশিুসহ সকল র্পযায়রে মানুষ অসম্মান, নরিাপত্তাহীনতা আর সন্ত্রাসী দখলদারদরে দাপটরে মধ্যে বসবাস করতে এখনও বাধ্য হচ্ছ।ে এই অবস্থা যে অবশ্যই পরর্বিতন করতে হবে তা বারবার ত্বকীর লখোয় ঘুরে ঘুরে আস।ে সটোই তার স্বপ্ন, সটোই তার প্রতজ্ঞিা।
ত্বকীর আরকেটি কবতিা ‘ফরিে এসো বাংলাদশে’-এ সইে বাংলাদশেরে আকাক্সক্ষা-
যখোনে উন্মত্ত হবে না কউে কাউকে
হত্যার জঘিাংসায়,
অমঙ্গল, অকল্যাণ ঠাঁই নবেনো কারো চন্তিায়
সমতার সমাজ হব,ে…
যাঁরা ভয়রে মধ্যে জন্মগ্রহণ করে
তাঁরা অপক্ষোয় আছ,ে
তুমি ফরিে এসো,
ফরিে এসো সখোন থকেে
ফরিে এসো
আমার বাংলাদশে।
ফরিে আসতইে হবে বাংলাদশেক,ে এই মানব সমাজক।ে বরে হতইে হবে এই নারকীয় জনম থকে।ে এটা যে সম্ভব তার প্রমাণ ত্বকীর পতিামাতাসহ সহযাত্রীরাই রখেছেনে। ত্বকীকে র্দুবৃত্তরা হত্যা করছেলিো আতঙ্ক সৃষ্টরি জন্য, হত্যা করছেলিো লুটরো দখলদারদরে বরিুদ্ধে মানুষরে লড়াইকে চুরমার করবার জন্য। কন্তিু তা হয়ন।ি শোককে কীভাবে শক্ততিে পরণিত করতে হয় তা দখেয়িছেনে ত্বকীর পতিা রফউির রাব্বসিহ স্বজন ও সঙ্গী মানুষরো। বুকরে ওপর শোকরে পাথর নয়ি,ে দানবদরে ফুলে ফঁেপে ওঠা রাজত্বরে আঘাতরে মধ্যওে, তাঁরা লড়াই অব্যাহত রখেছেনে। এই লড়াইয়রে শক্তইি ত্বকীর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করব,ে করতইে হব।ে
লখেক : র্অথনীতবিদি, লখেক, অধ্যাপক, জাহাঙ্গীরনগর বশ্বিবদ্যিালয়